দেশজুড়ে

সন্ত্রাসীর ভূমিকায় ইউপি চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লা জেলার বরুড়া থানার অন্তরগত খোশবাস ৩নং উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব নাজমুল হাসান সরদার ক্ষমতার অপব্যাবহার করে এলাকায় সন্ত্রাসীর কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। তাঁর বিরুদ্ধে ব্যাপক চাঁদাবাজী জমিদখল ও লুন্ঠন সন্ত্রাসী অভিযোগ রহিয়াছে তারপরে ও তার বিরুদ্ধে উধ্বর্তন    কর্তৃপক্ষ বা তাহার সমর্থনকারী রাজনৈতিক দল এ যাবৎ কোন ব্যাবস্থা গৃহীত করেনি। দলীয় ছত্র-ছায়ায় পুলিশের উদ্ধর্তন কর্মকর্তা দের ও প্রশাসনকে হাত করে তিনি নির্বিঘ্নে  এলাকায় সন্ত্রাসী চাঁদাবাজী ও লুন্ঠনের মত অপকর্ম করে যাচ্ছেন। তার বিরুদ্ধে থানায় কোন মামলা নেয় না সন্ত্রাসী কার্যকালাপের কারনে থানায় মামলা না নেওয়ায়

তার বিরুদ্ধে সি,আর মামলা নং- ৫০৬/২০১৯ ধারা ১৪৩/১৪৮/১৪৯/৪২৭/৩৫২/৩৭৯/৩৮০/৩৮২/৩৪ দঃ বিঃ সি, আর মামলা নং- ৫০৪/১৯ ধারা ১৪৩/১৪৮/১৪৯/৪২৭/৩৫২/৩৭৯/৩৮০/৩৮২/৩৪ দঃ বিঃ সি, আর মামলা নং- ৮৯৮/১৯ ধারা ২৯৫এ/৩৪৭/৪৪৭/৪৪৮/৩৭৯/৩৮০/৩৮২/৩৮৫/৩৮৬/৪১৩/৪৫৫/৫১১/৪১৮ দঃ বিঃ সি, আর মামলা নং- ৮৫৪/১৯ ধারা ১৪৯/১৫০/৩২৩/৩২৪/৪৪৭/৪৪৮/৩৮২/৩৮৫/৩৮৬/৪৫৫/৫১১ দঃ বিঃ যাহা এযাবৎ বিচারাধীন।

খোশবাস মালেকিয়া দরবার শরীফ একটা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে ও তিনি চাঁদাবাজী ও লুটপাট মারধর করতে ও তার মোটেও বিবেক বাধে না, তদন্তে আরো জানা যায় তিনি খোশবাস মালেকিয়া দরবার শরীফের দানবাক্স চুরি ও ছিনতাই করে সেই টাকা দিয়ে নির্বাচন করিয়াছেন এবং সংশ্লিষ্ট পাশ্ববর্তী ভূমি মালিকদের উচ্ছেদ এর ভয়ভীতি দেখিইয়া মামলা মোকাদ্দমা করতে দেয়নি, দীর্ঘদিন লুন্ঠন দান কৃত অর্থের দান বাক্স চুরি, নিজেকে লোকজন দিয়ে ভক্তদের কাছ থেকে জোর করে চাঁদা আদায়, খাবার এর টাকা ও মামলায় পুন:পৌনিক লুন্ঠন, এসব কারনে বাধ্য হয়ে দরবার মাজার শরীফের নিযুক্ত মতোয়াল্লী আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করেন তিনি আদালতের রায় পযর্ন্ত জালিয়াতী করে Stay Order দিয়াছেন বলে অন্যকে দিয়ে মামলা করে সেটাও ধরা পড়ার পর রীট পিটিশন নং ১৪৭৫৩/১৮ মামলায় ঐ Stay Order বাতিল হয়, তার পর তার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য মাজারের মতোয়াল্লী আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য ও মাজার এর টাকা ফেরত চাইলে ও ১৯/০৮/১৯ ইং তারিখে নোটিশ দিলে ও ০২/০৯/১৯ ও ০৩/০৯/১৯ ইং তারিখে সেখানে তান্ডভ চালিয়ে মতোয়াল্লীকে ধরে সাদা ষ্ট্যাম্প ও সাদা কাগজে সই নেওয়ার চেষ্টা করে তাতে ব্যার্থ হয়ে ০৩/০৯/১৯ ইং তারিখে তাকে বাজারে যাওয়ার সময় আটক করে টাকা পয়সা লুন্ঠন সহ সাদা কাগজে সই ও মারধর ইত্যাদি মত ঘটনা ঘটিয়াছেন, তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা না নেওয়া একটি সি,আর মামলা দায়ের করেন যাহা আদালতে বিচারাধীন আছে। উক্ত সন্ত্রাসী চাঁদাবাজী অন্যায় জায়গাটা দখল ইত্যাদি জানার পর ও এযাবৎ সংশ্লিষ্ট উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে এখানে কোন ব্যাবস্থা গ্রহন করেননি ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক।

ঢাকা-২৮/০৯/১৯ আরআইএস

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close