দেশজুড়েবাংলাদেশ

সাতক্ষীরা থানায় স্বেচ্ছায় কারাবরণের দাবীতে প্রেসক্লাবের অাহবায়ক কমিটির অবস্থান ধর্মঘট!!

সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি, একুশে টেলিভিশন, দৈনিক ইত্তেফাকের জেলা প্রতিনিধি মনিরুল ইসলাম মিনি ও প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, অামাদের সময় ও মাছরাঙা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল, প্রেসক্লাবের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বাংলাদেশ প্রতিদিনের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি মনিরুল ইসলাম মনি, বৈশাখী টেলিভিশনের সাংবাদিক শামীম পারভেজ, দৈনিক সুপ্রভাত পত্রিকার সম্পাদক এ কে এম আনিছুর রহমান, এশিয়ান টেলিভিশন সাংবাদিক মনিরুজ্জামান তুহিন, জয়যাত্রা টেলিভিশনের সাংবাদিক অাকাশ ইসলাম সহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের নামে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে সাতক্ষীরা থানায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে।

গতকাল বিকেল ৪টা থেকে ইফতারির পূর্ব মূহুর্ত পর্যন্ত অবস্থান নিয়ে মামলা প্রত্যাহার না হলে সাংবাদিকরা স্বেচ্ছায় কারাবরণের দাবীতে এ অবস্থান ধর্মঘট পালন করেন। এসময় প্রায় জাতীয়, আঞ্চলিক ও স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার ৫০ জন সাংবাদিক যোগ দেন।

অবস্থান ধর্মঘট চলাকালে বক্তব্য রাখেন, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের আহবায়ক ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও আমাদের সময় এবং মাছরাঙা টেলিভিশনের প্রতিনিধি মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল, প্রেসক্লাবের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার সাতক্ষীরা প্রতিনিধি মনিরুল ইসলাম মনি, বৈশাখী টেলিভিশনের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি শামীম পারভেজ, দৈনিক ইনকিলাবের জেলা প্রতিনিধি আক্তারুজ্জামান বাচ্চু, যমুনা ঠেলিভিশনের প্রতিনিধি আহসানুর রহমান রাজিব, দৈনিক গ্রামের কাগজের প্রতিনিধি এস, এম রেজাউল ইসলাম, এশিয়ান টিভির জেলা প্রতিনিধি মনিরুজ্জামান তুহিন, জয়যাত্রা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি অাকাশ ইসলাম, আজকের সাতক্ষীরার বার্তা সম্পাদক শাহ আলম, দৈনিক যুগের বার্তা পত্রিকার সিনিয়র সাংবাদিক আমিনুর রশিদ, বাংলাদেশ টুডের জেলা প্রতিনিধি মতিয়ার রহমান মধু, বিজয় টেলিভিশনের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি এস কে কামরুল হাসান, দৈনিক নওয়পাড়া পত্রিকার সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি হাফিজুর রহমান, দৈনিক ঢাকা প্রতিদিন ও দ্যা পিপলস্ টাইমন্সের খন্দকার অনিসুর রহমান আনিচ, দৈনিক একুশের বাণী জেলা প্রতিনিধি জাহিদুর রহমান পলাশ,দৈনিক সরজমিনের গাজি মুক্তার হোসেন, দৈনিক খুলনাঅঞ্চল প্রতিদিনের মনিরুজ্জামান মনি, দৈনিক ভোরের দর্পনের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি স.ম তাজমিনুর রহমান টুটুল, দৈনিক সংযোগ বাংলাদেশ পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি মোঃ আবু সাঈদ, দৈনিক ভোরের ধ্বণি পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি মো:আজহারুল ইসলাম, সময়ের কন্ঠের নুরুল ইসলাম,দৈনিক প্রভাতি খবরের ফিরোজ,পল্লী টিডিভর জেলা প্রতিনিধি মসিউর রহমান ফিরোজ প্রমূখ।

এ সময় সাংবাদিক নেতারা বলেন, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা ও হয়রানী মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। সাংবাদিকদের নিরাপত্তাসহ প্রেসক্লাবের চলমান সমস্যা সমাধানে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা প্রশাসনকে উদ্যোগ নেয়ার আহবান জানান। তা না হলে আগামীতে জেলার সকল কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে নিয়ে বৃহত্তর কর্মসূচি পালনের ঘোষনা দেন।

কর্মসূচী চলাকালে সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুনসুর আহম্মেদ, সাতক্ষীরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইলতুৎ মিশ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মেরিনা আক্তার ও সাতক্ষীরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান ও তদন্ত কর্মকর্তা মহিদুল ইসলামের আশ্বস্তে ঈদের পরে সাতক্ষীরার এমপি সহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি,সাধারন সম্পাদক ও জেলা প্রশাসক এবং পুলিশ সুপারের সমন্বয়ে আলোচনা সাপেক্ষে উভায়ের দায়েরকরা মামলা প্রত্যাহার সহ প্রেসক্লাবের সৃষ্ট সমস্যা সমাধান করার প্রতিশ্রুতিতে সেচ্ছায় সাংবাদিকদের কারাবরণ কর্মসূচী প্রত্যার করা হয়।

উল্লেখ্য,,,,, গত ২৯ মে প্রেসক্লাবের গঠনতন্ত্র লন্ঘন করে বিনা নৌটিশে কোন কারণ ছাড়াই সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি দৈনিক ইত্তেফাক ও একুশে টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি মনিরুল ইসলাম মিনি ও প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আমাদের সময় ও মাছরাঙা টেলিভিশনের প্রতিনিধি মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল, প্রেসক্লাবের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বাংলাদেশ প্রতিদিনের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি মনিরুল ইসলাম মনি, বৈশাখী টেলিভিশনের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি শামীম পারভেজকে সদস্যপদ বাতিল করে অগঠনতান্ত্রিক ভাবে গঠিত প্রেসক্লাবের সাবেক কমিটির সভাপতি আবু আহমেদ ও সাধারন সম্পাদক মমতাজ আহম্বেমদ বাপ্পী।

এর আগে প্রেসক্লাবের কয়েক জন সহযোগী সদস্য, এশিয়ান টিভির সাতক্ষীরা প্রতিনিধি মনিরুজ্জামান তুহিন, জয়যাত্রা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি অাকাশ ইসলাম সহ ২০ জন কর্মরত বিভিন্ন জাতীয়,আঞ্চলিক ও স্থানীয় পত্রিকার সাংবাদিক ও সম্পাদকদের সদস্য পদের জন্য দরখাস্ত করলে তাদেরকেও কালো তালিকাভুক্ত করে তা বাতিল করে দেয়। এতে সাংবাদিকরা ফুঁসে উঠে আবু আহমেদ, বাপী ও কল্যাণ ব্যানার্জীর উপর।

এঘটনায় ২৯ মে প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জলকে আহবায়ক করে ৫ সদস্যের একটি আহবায়ক কমিটি গঠিত হয়। সেখানে গঠনতন্ত্র লংঘন  ও সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগে সাংবাদিক আবু আহম্মেদ, আবুল কালাম আজাদ, মমতাজ আহমেদ বাপী ও কল্যাণ ব্যানার্জীর সদস্য পদ বাতিল করা হয়। একই সাথে আবেদকারী সাংবাদিকদের কাগজপত্র যাচাই-বাচাই করে নতুন সদস্য পদ প্রদান ও যে সমস্ত সাংবাদিকদের মিডিয়া নেই তাদের সদস্য পদ বাতিল করে ভোটার তালিকা প্রনয় সহ আগামি ৪৫ দিনের মধ্যে নির্বাচণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

ঘটনার পরের দিন ৩০ মে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের ৫ সদসের ওই আহবায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দ সহ অনান্য সাংবাদিকরা প্রেসক্লাবে প্রবেশ করলে সেখানে তাদের ওপর সাংবাদিক আবু আহম্মেদ, কালাম বাপি, কল্যাণ ব্যানার্জী চড়াও হলে উভয় পক্ষের মধ্যে হাতাহতির ঘটনা ঘটে।

এতে উভয় পক্ষের ১০ জন সাংবাদিক আহত হয়। এ ঘটনায় এশিয়ান টিভির সাতক্ষীরা প্রতিনিধি মনিরুজ্জামান তুহিন বাদী হয়ে আবু আহমেদ, আবুল কালামসহ ২১ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক অজ্ঞাতনামা ৩০/৪০ জনের নামে সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। অপরদিকে সময় টিভির মমতাজ আহমেদ বাপী বাদী হয়ে প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মনিরুল ইসলাম মিনি, সাবেক সাধারন সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল সহ ২৪ জনের নাম উল্লেখ করে পাল্টা মামলা দায়ের করে।

এম আর আই এস/রয়েল ডেক্সঃ
বাংলাদেশ সময় বিকাল ৬ঃ০৫ মিনিট
৪ জুন মঙ্গলবার

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close