দেশজুড়েবাংলাদেশরাজনীতি

উপজেলা ছাত্রলীগকে কলঙ্কিত করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে কুচক্রীমহল

শেখ ইমরান হোসেনঃ

তালা উপজেলা ছাত্রলীগকে কলঙ্কিত করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে ছাত্রলীগে প্রবেশকারী সুবিধাবাদি একটি মহল। সম্প্রতি উপজেলায় সক্রীয় ভাবে ছাত্রলীগ কাজ শুরু করলে কিছু ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়।

আর এই বিতর্কের সৃষ্টি করছে ছাত্রদল থেকে ছাত্রলীগে প্রবেশকারী সুবিধাবাদিরা । ইউনিয়ন ছাত্রলীগে পদ না পাওয়ায় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এর বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অপপ্রচার শুরু করেছে তারা।

সম্প্রতি কিছু ছাত্রলীগ কর্মীকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গকরে মাদক সেবনের অপরাধে দল থেকে বহিস্কার করায় উন্মদ হয়ে মিথ্যা ভিত্তিহীন তথ্য ছড়িয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের ভাবমূর্তী নষ্ট করার জন্য সড়যন্ত্র অবহ্যত রেখেছে।

এদিকে জালালপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপিত দেবাশীষ অধিকারীর বিরুদ্ধে নানা ধরনের মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে। জালালপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি দেবাশীষ অধিকারীর বিরুদ্ধে জালালপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাবেক সভাপতি নাহিদ হাসান অনিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সহ নানা ভাবে অপপ্রচার ছড়িয়ে বেড়াচ্ছেন বলে জানাযায়। তবে তারা যে ধরনের অপপ্রচার ছড়াচ্ছে সেটা আদৌও কখনো যুক্তিগত নয় বলে দাবি স্থানীয় আওয়ামী লীগের সক্রিয় কর্মীদের।

জানা যায়, এ বছরের এপ্রিল মাসের ২৯ তারিখে তালা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ সাদী ও সাধারণ সম্পাদক মশিউর আলম সুমন স্বাক্ষীরত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে নাহিদ হাসান অনিককে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে ও সংগঠন বর্হিভূত কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকার অভিযোগে বহিষ্কার করা হয় এবং একই পত্রে দেবাশীষ অধিকারীকে সভাপতি ও মোঃ সবুজ সরদারকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে একটি আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়।

দেবাশীষ অধিকারী বাবা জালালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন, তার বড়ভাই দিলিপ কুমার অধিকারী ১৯৯০ সালের দিকে তালা উপজেলা ছাত্রলীগের একজন সক্রীয় সদস্য ছিল।

এব্যাপারে স্থানীয় জালালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি রবিউল ইসলাম মুক্তি ও সাধারণ সস্পাদক রামপ্রসাদ লিখিত ভাবে যে প্রত্যায়ন দিয়েছেন, তাতে স্পষ্টভাবে লেখা রয়েছে দেবাশীষ অধিকারী পারিবারিক সুত্রে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ পরিবারের সন্তান। এ ছাড়াও দেবাশীষ অধিকারী উপজেলা বা ইউনিয়ন পর্যায়ে আ.লীগ, ছাত্রলীগ ও তার অঙ্গসংগঠনের সকলদলীয় অংশ গ্রহণ করে এসেছেন ।

এ বিষয়ে তালা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ সাদী বলেন, সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ডে লিপ্ত থাকায় নাহিদ হাসান অনিককে বহিষ্কার করা হয়। তাছাড়া কোন অবৈধ সুযোগ সুবিধা পাওয়ার জন্য দেবাশীষ কে পদ দেওয়া হয়নি। সেও তার পরিবার দীর্ঘদিন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাথে সরাসরি সম্পৃক্তা রয়েছে।

আর এ সকল বিষয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক লিখিত প্রত্যায়ন দিয়েছেন। তাছাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ঘোষ সনৎ কুমার সে সকল বিষয়ে নিশ্চিত করায় সংশ্লিষ্টদের মধ্যে দেবাশীষ অধিকারী যোগ্য হওয়ায় তাকে সভাপতি করা হয়েছে।

Tags
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close