বিনোদন

এলআরবির নতুন নাম ‘বালাম অ্যান্ড দ্য লেগ্যাসি’

গত ৫ এপ্রিল ব্যান্ডে আইয়ুব বাচ্চুর স্থলাভিষিক্ত হন জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী বালাম

রয়েল ডেক্স:

জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘এলআরবি’র নাম পরিবর্তন করে ‘বালাম অ্যান্ড দ্য লেগ্যাসি’ করা হয়েছে। সোমবার সকালে ব্যান্ডটির বর্তমান গিটারিস্ট আবদুল্লাহ আল মাসুদ এ তথ্য দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত বছর বাংলাদেশের রক মিউজিকের কিংবদন্তী আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুর প্রায় ৬ মাস পর গত ৫ এপ্রিল এলআরবির ভোকাল হিসেবে জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী বালামকে নেয়া হয়। রাজধানীর একটি রেস্টুরেন্টে আনুষ্ঠানিকভাবে পুনর্গঠিত হয় এলআরবি। এতে ব্যান্ডটির বর্তমান লাইন আপ দাঁড়ায়- বেজ গিটারে স্বপন,  লিড গিটারে মাসুদ, ভোকাল ও গিটারে বালাম, ড্রামসে রোমেল ও সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে শামীম আহমেদ। এর মাত্র ১০ দিনের মাথায় ব্যান্ডটির নাম পরিবর্তনের ঘোষণা করা হলো।

ব্যান্ডের নাম পরিবর্তনের কারণ জানতে চাইলে “এলআরবি ব্যান্ডের প্রাণপুরুষ আইয়ুব বাচ্চু প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা ও সম্মান রেখে তার স্মৃতিকে অম্লান রাখতে আমরা কাজ করে যেতে চাই। তাই এতে বালামকে যুক্ত করা। কিন্তু প্রয়াত আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের সদস্যরা এলআরবি নামটি ব্যবহার না করার জন্য আমাদের কাছে বিশেষ অনুরোধ জানিয়েছেন। বসের পরিবারের প্রতি সম্মান জানিয়ে আমরা নামটি আর ব্যবহার করব না। এখন থেকে আমরা বালাম অ্যান্ড দ্য লেগ্যাসি নামে গান পরিবেশন করব”।

পরবর্তীতে ব্যান্ডটির পক্ষ থেকে পাঠানো একটি লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, “আইয়ুব বাচ্চু একটি কথা বারবার বলতেন, ‘শো মাস্ট গো অন’। তাই তার পরিবারের অনুরোধে এলআরবি নাম ব্যবহার না করে ও আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি সম্মান জানিয়ে নতুনভাবে কাজ চালিয়ে যাবেন ব্যান্ডের সদস্যরা। এখন থেকে এলআরবি ব্যান্ডের সদস্যরা বালাম অ্যান্ড দ্য লেগ্যাসি নামে মঞ্চ মাতাতে আসবেন”।

Contact with this number for buy domain , hosting & also design like this website and your like.

প্রসঙ্গতঃ ১৯৯০ সালের ৫ এপ্রিল আইয়ুব বাচ্চুর হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হয় এলআরবি। শুরুতে ব্যান্ডটির নাম রাখা হয়েছিল ‘লিটল রিভার ব্যান্ড (এলআরবি)’। ১৯৯৭ সালে নামের পরিবর্তন আসে। রাখা হয় ‘লাভ রান্‌স ব্লাইন্ড (এলআরবি)’। এরপর থেকে এই নামেই মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নেয় ব্যান্ডটি। হয়ে ওঠে বাংলাদেশের ব্যান্ড মিউজিকের আইকন।

ট্যাগ
আরো দেখুন

এই বিভাগের আরও কিছু খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close