বাংলাদেশ

মোংলায় গভীর রাতে বসত ঘরে আগুন দেয়ার ঘটনায় ৪ জনকে আসামী করে মামলা, আটক-১

মোংলা প্রতিনিধি:

মোংলা বুড়িরডাঙ্গা এলাকায় গভীর রাতে ব্যবসায়ীর বসত ঘরে আগুন দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে চার জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার।

আগুন দেয়ার সময় হাতেনাতে এক জনকে গনদোলাই দিয়ে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার গভীর রাতে বুড়িরডাঙ্গা গ্রামের ৫ নাম্বার ওয়ার্ডে কাকড়া ব্যবসায়ী দিপংকর মন্ডলের বসত ঘরে আগুন দেয় প্রতিপক্ষ মিঠুন চক্রবর্তীর নেতৃত্বে কয়েকজন সন্ত্রাসীরা। এ সময় ঘরে থাকা এক গর্ভবতী মহিলাসহ সবাই বেরিয়ে আসতে সক্ষম হয়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই মুহুর্তের মধ্যে আগুনের লেলিহা চুর্তদিকে ছড়িয়ে পড়ে এবং পুরোঘর পুড়ে চাই হয়ে যায়।

রাত হওয়ার কারনে এ আগুন নেভানো সম্ভব হয়নী বলে জানায় স্থানীয়রা। স্থানীয় ইউপি সদস্য দিপক রায় জানান, জমিজমা নিয়ে পূর্ব সত্রুতার জেরে বুড়ির ডাঙ্গার বাসিন্ধা দিপংকর মন্ডলের ঘরে রাতে আগুন লাগিয়ে দেয় একই এলাকার বাসিন্ধা মিঠুন চক্রবর্তী ও তার সহযোগীরা। আগুন জলতে দেখে স্থানীয় লোক জন ছুটে এসে ঘরে থাকা লোক জন কে উদ্ধার করে বের করে নেয়। এ সময় ঘটনাস্থলে গুরতে থাকা মিঠুন চক্রবর্তীকে একটি দাওসহ গনদোলাই দেয় স্থানীয়রা। পরে তাকে পুলিশে দেয়া হয়।

Contact with this number for buy domain , hosting & also design like this website and your like.

ওই ইউপি সদস্য আরো জানান, মিঠুন চক্রবর্তী ও তার পরিবার সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। এর আগেও তার বিরুদ্ধে অনেক সন্ত্রাসী কর্মকার্ন্ডের অভিযোগ রয়েছে। পুড়ে যাওয়া বসত ঘরটির মালিক দিপংকর চক্রবর্তী জানান, বসত ঘরটি পুড়ে তার পাচ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আর এখন আর্থিক অনটনের কারনে তিনি নতুন বসত ঘর তৈরী করতে পারবেন না এবং পাশের একটি বাড়ীর উঠানে তাবু টানিয়ে বসবাস করছে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় ওই পরিবারটি।

মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, আগুন লাগার ঘটনায় চার জনকে আসামী করে মোংলা থানায় একটি মালা দায়ের হয়েছে, যার নং-০১। এরা হচ্ছে, মিঠুন চক্রবর্তী (৩৬), মিলন চক্রবর্তী (৩৮), নিপুন চক্রবর্তী (২৮) ও তার বাবা নিহার চক্রবর্তী (৬০)। ১নং আসামী মিঠুন চক্রবর্তীকে আটক করা হয়েছে, তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠাে না হয়েছে। বাকী আসামীদের আটকের চেষ্টা চলছে বলেও জানান এ কর্মকর্তা।

ট্যাগ
আরো দেখুন

এই বিভাগের আরও কিছু খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close